তৃণমূলের জনপ্রিয় নেতা আব্দুস সালাম হাওলাদারের এ ত্যাগ সারা দেশের জন্য দৃষ্টান্ত

তৃণমূলের জনপ্রিয় নেতা আব্দুস সালাম হাওলাদারের এ ত্যাগ সারা দেশের জন্য দৃষ্টান্ত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের নৌকার প্রতি শ্রদ্ধা এবং ইকবাল হোসেন অপু এমপি’র প্রতি আস্থা রেখে চিতলিয়া ইউনিয়নের  দীর্ঘ ২৫ বছরের নৌকার সেবক, সমর্থকদের কান্না উপেক্ষা করে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন মুজিব আদর্শের অকুতোভয় নেতা আব্দুস সালাম হাওলাদার।

চার দলীয় জোট সরকারের আমলে তৃণমূলের আওয়ামী কর্মীদের আগলে রেখেছেন। তৎকালীন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রব মুন্সী<span;>‘র আস্থার প্রতিদান <span;>রেখে দক্ষতার সাথে পালন করেছেন শরীয়তপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়ীত্ব। ২০১৬ সাল থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে অবদান রেখে চলেছেন আওয়ামী রাজনীতিতে।

বিজ্ঞাপণ

দলের ভিতর গ্রুপিং বা কোন্দল সব দলেই কমবেশি থাকে। শরীয়তপুরের আওয়ামী লীগ এর ব্যতিক্রম নয়। কিন্তু আব্দুস সালাম হাওলাদার গ্রুপিং বা কোন্দলের কারণে কখনোই দলীয় সিদ্ধান্ত বা নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নেননি।

তৃণমূল আওয়ামী লীগ ও চিতলিয়া ইউনিয়নের সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্যক্তি যখন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাননি, মূলত তখনই তার রাজনৈতিক জীবনের সবচেয়ে কঠিন পরীক্ষার সম্মূখিন হতে হয়েছে। একদিকে নিজের কর্মী সমর্থকদের চাওয়া অন্যদিকে দলীয় সিদ্ধান্ত। কিন্তু এ কঠিন পরীক্ষাতে আব্দুস সালাম হাওলাদার শুধু পাশই করলেন না, পেলেন লেটার মার্কস। তার কর্মী সমর্থকদের চাওয়া, দাবী নত মস্তকে উপেক্ষা করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাস্টার হারুন-অর-রশিদ হাওলাদার’র প্রতি সমর্থন দিয়ে সরে দাঁড়ালেন নির্বাচন থেকে।

বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করলে হয়তো চেয়ারম্যান হতেন কিন্তু দলের কাছে হয়ে যেতেন ভিলেন। তবে এখন তিনি আসল হিরোতে পরিনত হয়েছেন। তার ত্যাগ শুধু শরীয়তপুর নয় পুরো দেশের আওয়ামী রাজনীতিবীদদের জন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

Share
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
রাজনীতি শরিয়তপুর সারাদেশ